1. newsiqbalcox@gmail.com : Somoy Bangla : Somoy Bangla
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:২৫ অপরাহ্ন

প্রধান অতিথি আসতে দেরি, ৭ ঘন্টা ধরে অপেক্ষায় শিশু শিক্ষার্থীরা

ডেস্ক নিউজ
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৭ মার্চ, ২০২৩
  • ২৯০ ভিউ সময়

 

সোহেল রানা, রাজশাহী ব্যুরো:

 

রাজশাহীর তানোর উপজেলার চন্দনকোঠা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নবনির্মিত একাডেমিক ভবনের উদ্বোধনের দিন ছিল শুক্রবার বিকেল তিনটায়। এই বিদ্যালয়ের একাডেমির ভবন উদ্বোধন উপলক্ষে সকাল ১০টায় সকল শিক্ষার্থীদের এই স্কুলে হাজির করা হয়।
প্রথম পর্যায়ে দুপুর পর্যন্ত চলে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটা অনুষ্ঠান। এরপর বিকেলে ছিল চন্দনকোঠা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নবনির্মিত একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন। স্কুলের ভবন উদ্বোধন উপলক্ষে দুপুরে শিক্ষার্থীতে বাসায় যেতে না দিয়ে সকল শিক্ষার্থীকে বিদ্যালয়েই রাখা হয়। শুধু শিক্ষার্থীদেরই নয়, এর সাথে অভিভাবকদেরও বাসায় যেতে নিষেধ করা হয়। স্কুলের ভবন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী।
বিকেল তিনটায় ওই স্কুলের ভবন উদ্বোধনের সময় থাকলেও সন্ধ্যা পর্যন্ত দেখা মিলেনি প্রধান অতিথির। বিকেল তিনটায় এমপির উপস্থিত হওয়ার কথা থাকলেও তিনি উপস্থিত হন সন্ধ্যা সাতটার দিকে। অথচ সকাল ১০ টা থেকে শিক্ষার্থীদের আটকে রাখা হয় স্কুলেই। এতে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা যায়।
দেখা যায়, প্রধান অতিথি আসতে দেরি করায় বিদ্যালয়ের সামনে ৭ ঘন্টা ধরে চেয়ারে বসে অপেক্ষা করতে হয় শিশু শিক্ষার্থীদের।
দেখা যায়, সন্ধ্যা ৭টায় ৪৮ মিনিট পর্যন্ত বিদ্যালয়ের সামনে শিশু শিক্ষার্থীরা বসে আছে। এসময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, গোদাগাড়ী-তানোর আসনের এমপি আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করছেন, তানোর প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সানাউল্লা। সভাপতিত্ব করছেন তানোর মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক মুনসেফ।
এ বিষয়ে ওই বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সুলতানা পারভীন বলেন, এমপি সাহেব এর আগে অনেকগুলো বিদ্যালয়ে গিয়েছিলেন। বিভিন্ন প্রোগ্রামে ছিলেন। এজন্য আসতে দেরি হয়েছে। অনুষ্ঠানে কতোজন শিক্ষার্থী আছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, অনুষ্ঠানে প্রায় ২০০ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত আছেন।
তানোর মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক মুনসেফ আলী বলেন, এমপি আসতে দেরি হওয়ায় শিক্ষার্থীদের হয়তো কষ্ট হয়েছে। তারপরও শিক্ষার্থীদের দুপুরের খাবার দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, দিনভর প্রোগ্রাম ছিল। যার কারণে সকালে শিক্ষার্থীরা এলেও তাদের বাসায় যেতে দেয়া হয়নি। তিনি বলেন, এমপি সাহেব বক্তব্য দেয়ার পর পরই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বাসায় পাঠানো হয়।

দেরিতে আসার বিষয়ে এমপি আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, বিভিন্ন প্রোগ্রামে ব্যস্ত ছিলাম, এজন্য সময় অনুযায়ী আসতে পারিনি। তানোর প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সানাউল্লা রাত ৮টায় বলেন, শিক্ষার্থীরা কেউ অনুষ্ঠানে উপস্থিত নেই। যা আছে এলাকার মানুষ। শিক্ষার্থীরা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের কর্মসূচি পালন করেই চলে যান। আমরা বিকেল ৫টায় এসে দেখি কোনো শিক্ষার্থী অনুষ্ঠানে উপস্থিত নেই।

শেয়ার করুন

আরো বিভন্ন নিউজ দেখুন
© All rights reserved © 2021 somoybanglatv.com
Theme Customization By Monsur Alam