মহেশখালীতে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় কাজ করছে ওসি আব্দুল হাই

ফুয়াদ মোহাম্মদ সবুজ, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২০

ফুয়াদ মোহাম্মদ সবুজ, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
মহেশখালী থানায় সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে রাত-দিন কাজ করে যাচ্ছেন নবাগত ওসি আব্দুল হাই। কক্সবাজারের মহেশখালী থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসেবে যোগদানের পর থেকেই থানার পরিস্থিতি উন্নতির পথে। তাঁর টিমকে সাথে নিয়ে দাঙ্গা, মাদকমুক্ত ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। থানাকে দালালমুক্ত করতে তার বলিষ্ঠ ব্যবস্থাপনায় থানার যাবতীয় কার্যক্রম ফলোআপে এনেছেন তিনি। এছাড়াও অনেক ইয়াবা ব্যবসায়ী এলাকা ছেড়ে আত্মগোপনে রয়েছে যারা ইয়াবা ব্যবসা করে অনেক যুবকের জীবন নষ্ট করেছেন। বর্তমানে তারা চরম আতঙ্কে রয়েছে এবং বিভিন্ন জায়গায় তারা পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

উপজেলার নোনাছড়ি এলাকার এক বাসিন্দা বলেন, যে কোন সমস্যার অভিযোগপত্র দাখিল করলে তিনি সাথে সাথে তা আমলে নিয়ে তদন্ত করে রিপোর্ট প্রদানের জন্য নির্দেশ দেন। ওসি আব্দুল হাই’র এই রুপ আন্তরিকতা সেবার মন মানসিকতার প্রশংসা করে থানার সকল পুলিশ সদস্যদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি। এলাকার অনেক সচেতন মহল, সভা অনুষ্ঠানে প্রশংসনীয় আলোচনা করেন যে, মহেশখালী থানার বর্তমান ওসির কার্যক্রমগুলো মহেশখালী উপজেলার নিদর্শন স্বরুপ দাঙ্গামুক্ত, মাদকমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত, বাল্যবিবাহ বন্ধ, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে তিনি অগ্রণী ভুমিকা পালন করবেন। মহেশখালী থানায় তিনি কাজকে কাজের মত দেখে তার কর্মকান্ড গুলো বাস্তবায়ন করবেন। সুন্দর বাসযোগ্য থানা গড়তে সচেতন মহল মহেশখালী থানার ওসির কাছে প্রত্যাশা করছেন। মহেশখালী থানার কর্মরত কয়েকজন অফিসারদের সাথে কথা বললে তারা জানান, আব্দুল হাই স্যার সৃজনশীল মানুষ, যোগদানের পর থেকে তিনি রাত-দিন এক করে কাজ করছেন। রাত দিন তিনি মহেশখালী থানার শান্তি শৃঙ্খলা বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছেন। অভিযান পরিচালনা সহ ঝুলন্ত মামলা গুলোর ফাইনাল রিপোর্ট এবং চার্জশীট প্রদানে তদন্তকারী কর্মকর্তাদের নির্দেশ প্রদান করেন।

ওসি আব্দুল হাই আমার সংবাদকে বলেন, দেশ সেবার মন মানসিকতা নিয়ে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেছি ,সে থেকে এ পর্যন্ত সততার বাস্তবায়নে কার্যক্রম চালিয়ে আসছি। সমাজ ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা পুলিশের একার পক্ষে সম্ভব নয় সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। এজন্য সামাজিক কার্যক্রমগুলো সফলভাবে সম্পাদন করার জন্য সচেতন মহল, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিকসহ সকলের প্রতি মাদক ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসী, এবং চোরাকারবারিদের তথ্য দিয়ে সার্বিক সহযোগিতা করার আহ্বান জানাচ্ছি এবং তথ্যদাতাদের নিরাপত্তার স্বার্থে নাম সমূহ গোপন করা হবে বলেও জানান তিনি। তিনি আরো বলেন, এখন থেকে আমার মহেশখালী পুলিশ ডিপার্টমেন্টে কোন দালাল ঘেঁষার সুযোগ নাই, ইতিমধ্যে আমি পুলিশের সকল ইউনিটে বলে দিয়েছি অর্থনৈতিক লেনদেন করে কোন কাজ করলে সাথে সাথেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তাই দালালরা যাতে থানা ও বিট পুলিশের আশেপাশে ঘেঁষতে না পারে সেজন্য অটুট থাকতে হবে।

এই সংবাদটি শেয়ার করার দায়িত্ব আপনার

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ সমূহ