যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে মহেশখালীতে শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপিত

রিপোটার পরিচিতি :
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২০

আ ন ম হাসান: মহেশখালী

যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে মহেশখালী উপজেলাযর ৩১টি পূজামণ্ডপে শ্রী শ্রী শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপিত হয়। ২২অক্টোবর  হতে শুভ মহা ষষ্ঠী পূজার মাধ্যমে শ্রী শ্রী শারদীয়া দুর্গোৎসব আরম্ভ হয়। অসুর শক্তির বিনাশ ঘটিয়ে পৃথিবীর সকল প্রাণীর মঙ্গল কামনায় এই পূজা করা হয়। নতুন সাজে মাকে দর্শন করতে পেরে সনাতনী সম্প্রদায় আনন্দে আত্মহারা। এই উপমহাদেশের সনাতন সম্প্রদায়ের সর্বোচ্চ মহা তীর্থপীঠ শত বৎসরের ঐতিহ্য মহেশখালীর শ্রী শ্রী আদিনাথ মন্দিরে শ্রী শ্রী অষ্টভুজা দুর্গা মায়ের পুজা করা হয়। মহেশখালীতে ৩১টি দুর্গা পূজার মধ্যে শ্রী শ্রী আদিনাথ মন্দিরে একটিমাত্র প্রতিমা পূজা হয় এবং বাকি ৩০টিতে ঘট পূজা করা হয়।

জনশ্রুতি আছে,বিশ্বের মধ্যে একমাত্র  মহেশখালীতে কোন প্রতিমা পুজা হয় না বা প্রতিমা তৈরি করে দুর্গা পুজো করতে পারে না। কারন শত শত বৎসর আগে দেবী দুর্গা মায়ের অর্থাৎ অষ্টভুজা দুর্গা মায়ের প্রতিমা প্রতিষ্টা হয়েছিল আদিনাথ মন্দিরে। ইতিহাস বলে, নেপাল রাজবংশের কাছ থেকে শ্রী শ্রী আদিনাথ বা শিবের নির্দেশে নিয়ে আসা হয়েছে শ্রী শ্রী অষ্টভুজা দুর্গা মায়ের প্রতিমা। যার কারনে প্রতিষ্টিত দুর্গা মায়ের প্রতিমা থাকাতে মহেশখালীর কোথাও প্রতিমাপুজা করতে পারেনা। যা স্বপ্নে নির্দেশিত। যারা প্রতিমা গড়ে পুজা করার চেষ্টা করেছে, তাদের পরিবারের ক্ষতি হয়েছে।  তাই মহেশখালী উপজেলাতে প্রতিটি গ্রামে ঘট পুজো হয়। শ্রীশ্রী আদিনাথ মন্দিরে  সবাই এসে শ্রীশ্রী অষ্টভুজা দুর্গা মায়ের পুজো করেন। বিশ্বের একমাত্র  সেতশুভ্র শ্রী শ্রী দুর্গা প্রতিমাটি রয়েছে শ্রীশ্রী আদিনাথ মন্দিরে। প্রতিবছর মহা ষষ্ঠীর সময়ে মাকে স্নান করানো হয়। শত শত ভক্ত মানস করেন মাকে একবার স্নান করানোর জন্য।

মহেশখালী পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক   প্রনব কুমার দে বলেন, মহেশখালীতে শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে মহেশখালী উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের প্রতি টি পূজামন্ডপের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার সরকারী জি আর খাদ্য শস্য ও সাংসদের দেওয়া  বিশেষ উপহার নগদ অর্থসহ মার্কস ও সেনিটাইজার বিতরণ করা হয়।  যথাযোগ্য মর্যাদায় ও শান্তিপূর্ণভাবে শ্রী শ্রী দূর্গা পূজা ও উৎসব সম্পন্ন হওয়ায় মাননীয় সাংসদ সহ প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রতি তিনি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ৷

পুটিবিলা পালপাড়া দুর্গোত্সব কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নিপ্পন পাল বলেন, ৩১টি পূজামণ্ডপে শ্রী শ্রী শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপিত হয়। ২২অক্টোবর  হতে শুভ মহা ষষ্ঠী পূজার মাধ্যমে শ্রী শ্রী শারদীয়া দুর্গোৎসব আরম্ভ হয় ৷
প্রতিবছর প্রতিটি পূজা মণ্ডপে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ তাদের নিজস্ব পরিকল্পনা মাফিক ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের, যেমন জাগরণ পুথি পাঠ, গীতা পাঠসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান মাধ্যমে পূজা-অর্চনার আয়োজন করেন ৷

শ্রী শ্রী শারদীয় দূর্গোৎসব পরিদর্শনে করেন, মহেশখালী-কুতুবদিয়ার সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক, মহেশখালী উপজেলার নির্বাহী অফিসার মোঃ মাহফুজুর রহমান, মহেশখালী উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) জসুইচিং মং মারমা, ও মহেশখালী থানার অফিসার্স ইনচার্জ  আব্দুল হাই, উপজেলা আনসার ভিডিপি অফিসার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, মহেশখালী উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মোঃ সাজেদুল করিমসহ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

পরিদর্শনের সময় উপস্থিত সকলকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। মঙ্গল প্রদীপের আলোয় আলোকিত হোক আমাদের বিশ্ব। ” ধর্ম যার যার, রাষ্ট্র সবার। ধর্ম যার যার, উৎসব সবার”–মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার এই মর্মবাণী ধারণ করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখে করোনাকালীন এই মহাসঙ্কট হতে পরিত্রাণের জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে শ্রী শ্রী দুর্গা মায়ের পূজা করা হয়েছে বলে পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দরা জানান ৷

এই সংবাদটি শেয়ার করার দায়িত্ব আপনার

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ সমূহ