মাতারবাড়ী ইউপি নির্বাচনের হাওয়াঃ এগিয়ে মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহ

রিপোটার পরিচিতি :
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২০

ফুয়াদ মোহাম্মদ সবুজ, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
বিশ্বকে দিশেহারা করে দেওয়া করোনা ভাইরাসের প্রকোপে টানা পাঁচ মাসেরও বেশি সময় ধরে বলতে গেলে ‘হোম কোয়ারেন্টাইনে’ থাকা রাজনৈতিক দলগুলো ঘর থেকে বেরিয়ে আসার তৎপরতা শুরু করেছে। প্রথমে জাতীয় সংসদের শূন্য হওয়া চারটি আসনে অনুষ্ঠেয় উপনির্বাচনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে মাঠের রাজনীতিতে সক্রিয় হতে চাইছে দলগুলো। এরপর পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি)সহ স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন নির্বাচনের মাধ্যমে সারা দেশে দলীয় রাজনৈতিক কার্যক্রম বিস্তৃত করার প্রস্তুতি চলছে।

এরই ধারাবাহিকতায় সারাদেশের ন্যায় কক্সবাজারের মহেশখালী মাতারবাড়ীতেও বইছে ইউপি নির্বাচনের হাওয়া আর রাজনৈতিক মাঠ প্রচার-প্রচারণার মাধ্যমে সরগরম করছে ইউনিয়নের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীরা। এবার এ ইউনিয়নের জনগন কাকে চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচিত করবেন এনিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে চুল ছেঁড়া বিশ্লেষণ। যার কারণে এবার চেয়ারম্যান যেই হোক না কেন কঠিন পরীক্ষার সন্মুখীন হতে হবে এ ইউনিয়নে। কারণ এ ইউনিয়নে সরকারের কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পসহ বড় বড় মেগা প্রকল্প হতে যাওয়ায় এটি বর্তমান সরকারের পেষ্টিত ইস্যুর আসন হয়ে দাঁড়িয়েছে। এবারের নির্বাচনে এই ইউনিয়ন থেকে জনপ্রতিনিধির কাতারে আওয়ামীলীগ থেকে যারা আসতে চায় এমন প্রার্থীদের মাঝে প্রকল্পের কোটি কোটি টাকা লুপাট করে পকেট ভারি করার প্রার্থীও রয়েছে। এছাড়াও কমিশন বাণিজ্যসহ এলাকায় অনেক অনিয়মের সাথে যুক্ত থাকা প্রার্থীর প্রচার-প্রচারণাও চোখে পড়ার মত।

তবে গ্রামীণ বিচার ব্যবস্থা, সড়ক উন্নয়ন ও জনপ্রিয়তায় বেশি এগিয়ে রয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহ, কারণ এই ইউনিয়নে তার রয়েছে তুমুল জনপ্রিয়তা আর সন্ত্রাসী নিধন ও সরকারের বিশেষ প্রকল্প বাস্তবায়নে অগ্রণী ভুমিকা। তবে এবারের নির্বাচনে মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহ’র মত যোগ্য আর ক্লিন ইমেজের প্রার্থী কি পাবে মাতারবাড়ীবাসী? এনিয়ে প্রশ্ন তুলছেন স্থানীয়রা। উপজেলার আ.লীগ নেতারা বলছেন, মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহ চেয়ারম্যান হওয়ার পর থেকে যেভাবে আ.লীগের পাশে ছিলেন তা প্রশংসনীয়। আগামী নির্বাচনে দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হলে আশা করছি মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহকে নমিনেশন দিবে সরকার।

স্থানীয়রা বলছেন, যারা জনপ্রতিনিধি হওয়ার আগে জনগণের অধিকার নিয়ে ছিনিমিনি খেলে আর প্রকল্পের কোটি কোটি টাকা লুটপাট করতে পারে তারা জনপ্রতিনিধি হওয়ার পর কি করতে পারে তা অকল্পনীয়৷ তাই গরীবের বন্ধু মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহকেই আমরা ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবো আমরা।

এই সংবাদটি শেয়ার করার দায়িত্ব আপনার

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ সমূহ