চকরিয়া বদরখালীতে মানবাধিকার কর্মী রাসেলের সহযোগিতা আর অর্থায়নে রাস্তা সংস্কার

রিপোটার পরিচিতি :
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট, ২০২০

আলা উদ্দিন আলোঃ
জেলার সর্ববৃহত উপকূলীয় বানিজ্যিককেন্দ্র চকরিয়া উপজেলার বদরখালী বাজার। চকরিয়া, পেকুয়া, কুতুবদিয়া ও মহেশখালীর লক্ষ লক্ষ মানুষ প্রতিদিন উক্ত বাজারে নিত্যপণ্য বিকিকিনি করে। উক্ত বাজারের গুরুত্বপূর্ণ ও প্রধান সড়ক বাজারের ওয়াপদা সড়কের বাজার অংশে বদরখালী পুলিশ ফাঁড়ী হতে দক্ষিন দিকে বাজার পর্যন্ত সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের অভাবে যানবাহন ও জন চলাচল অযোগ্য হয়ে পড়ে। প্রতিনিয়ত টমটম সহ বিভিন্ন যান দুর্ঘটনায় অনেকে চিরতরে পঙ্গুত্ববরণ করলে ও সড়কটি সংস্কারে কেউ উদ্যোগ নেয়নি। অথচ সড়কটিতে স্কুল কলেজ মাদ্রাসার হাজার হাজার ছাত্র ছাত্রী সহ প্রতিদিন লক্ষাধিক মানুষের চলাচলের একমাত্র পথ। এশিয়ার সর্ববৃহত সমিতি কিংবা বদরখালী ইউনিয়ন পরিষদের ও সড়কটি একমাত্র যোগাযোগের মাধ্যম হলেও সমিতি বা পরিষদ কেউ সড়কটির দিকে অদৃশ্য কারনে নজর দেয়নি। এই অতিব গুরুত্বপূর্ণ সড়কটির সংস্কারে কেউ হাত না দেওয়ায় যখন সড়কের মাঝে ছোট বড় গর্ত সহ ভেঙ্গে চৌচির হয়ে চলাচল অযোগ্য হয়ে পড়ে তখনই এগিয়ে আসে বদরখালী ৩ নং ওয়ার্ডের তরুন সমাজ সেবক জাতীয় পরিবেশ মানবাধিকার সোসাইটির মাতামুহুরী থানা শাখার সভাপতি মোহাম্মদ উল্লাহ রাসেল। সাথে সহযোগি হিসাবে যোগ দেন বদরখালী কৃষি উপনিবেশ সমবায় সমিতির চেয়ারম্যানের সুযোগ্য পুত্র সরওয়ার আরম সিকদার।

বৃহঃবার (৬ আগস্ট) সকাল ১০ টার সময তাদের আর্থিক সহযোগিতায় প্রধান সড়কের মধ্যখানে বড় একটি গর্ত সহ বেশ কিছু গর্ত ইটের কংক্রিট আর বালি দিয়ে ভরাট ও সংস্কার করে দেয়। এতে উক্ত সড়কে যান ও মানুষ চলাচলে দুর্ভোগ লাঘব হয়েছে। এ নিয়ে বদরখালীতে রাসেল বন্ধনা চলছে। যে কাজটি এশিয়ার বৃহৎ সমিতি পারেনি বা করেনি, যে কাজটি ইউনিয়ন পরিষদ করতে পারেনি, সেই কাজটি করে দেখিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন তরুন সমাজ সেবক রাসেল। রাসেল ইতিমধ্যে তার জনদুর্ভোগ লাগবে বেশ কিছু রাস্তা সংস্কার করে দারুন প্রসংশিত হয়েছেন।
এবিষয়ে জানতে চাইলে জাতীয় পরিবেশ মানবাধিকার সোসাইটির মাতামুহুরী থানা সভাপতি ও বদরখালী ৩ নং ওয়ার্ডের তরুণ সমাজসেবক মোহাম্মদ উল্লাহ রাসেল বলেন, ওয়াপদা সড়কটি সহ ৩ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন সড়ক পথ উন্নয়ন ও সংস্কারের অভাবে ভেঙ্গে গিয়ে গাড়ী ও জন চলাচলে দুর্ভোগ হচ্ছে, প্রতিনিয়ত টমটম সহ বিভিন্ন গাড়ী দুর্ঘটনায় জান মালের ক্ষতি হচ্ছে। কিন্তু কারো নজরে আসতেছেনা। তখনই সিদ্ধান্ত নিই অল্প টাকা খরচ করে অন্ততঃ জনদুর্ভোগ কমানো যাবে। সেই চিন্তায় ইতিপুর্বে হাই স্কুল সড়ক সহ বেশ কয়েকটি সড়ক জরুরী সংস্কার করেছি। তারই ধারাবাহিকতায় আজ সকালে ওয়াপদা সড়কের বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গা সড়ক সংস্কার করেছি। সকালে ট্রাক দিয়ে ইটের কংকর ও বালি এনে সড়কটি যোগাযোগ উপযোগী করি। সবার উচিত যার যার অবস্থান থেকে মানব কল্যাণে কাজ করে যাওয়া। আমি সেই তাগিদে জনস্বর্থে কাজ করেছি। সামনেও করে যাব ইনশাল্লাহ।

এই সংবাদটি শেয়ার করার দায়িত্ব আপনার

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ সমূহ