ষড়যন্ত্রের শিকার ছাত্রলীগ নেতা বিপলু

ফুয়াদ মোহাম্মদ সবুজ, সিনিয়র রিপোর্টার ●
  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯

ফুয়াদ মোহাম্মদ সবুজ, সিনিয়র রিপোর্টার:
দেশব্যাপী চলমান ক্যাসিনো ও দুর্ণীতি বিরোধী শুদ্ধি অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে মিছিল ও সন্ত্রাস, মাদক, দুর্ণীতি বিরুদ্ধে বিক্ষোভ সমাবেশ’কে বাঁধা দিতে উঠেপড়ে লেগেছে স্থানীয় একটি স্বার্থান্বেষী মহল, গত ১১ ই অক্টোবর শুক্রবার মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেশব্যাপী চলমান এই শুদ্ধি অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে মিছিল করে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ চট্টগ্রাম  পাঁচলাইশ থানা ও মহানগরের নেতাকর্মীরা, অনুষ্টিত সমাবেশের খবর স্থানীয় ও জাতীয় পত্র-পত্রিকা এবং নাম বিশিষ্ট অনলাইন গনমাধ্যমে একযোগে প্রকাশিত হয়।

নগর ছাত্রলীগ নেতা ও জননেত্রী শেখ হাসিনা পরিষদের পাঁচলাইশ থানা শাখার বিপ্লবী সাধারণ সম্পাদক নুরুল বশর বিপলুর সঞ্চালনায় যুবলীগ নেতা ইকতিয়ার আহমেদ জহিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠেয় সমাবেশে প্রধান অথিতি ছিলেন মহানগর ৭ ও ৮নং ওয়ার্ড মহিলা সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিল জেসমিন পারভিন জেসি, বিশেষ অথিতি ছিলেন পাঁচলাইশ থানা আওয়ামিলীগ নেতা এসএম খালেদ বাবলু।

কিন্তু এই স্বাগত মিছিল ও সমাবেশকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম থেকে প্রকাশিত চট্টগ্রাম প্রতিদিন নামে একটি অনলাইনে অর্থের বিনিময়ে “সন্ত্রাসীদের নিয়ে সন্ত্রাস বিরোধী মিছিলে জেসি” শিরোনামে একটি মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশ করে স্থানীয় একটি স্বার্থান্বেষী মহল। প্রকাশিত সংবাদে যুবলীগ নেতা ইকতিয়ার আহমেদ জহিরকে সন্ত্রাসী ও ছাত্রলীগ নেতা নুরুল বশর বিপলুকে যুবলীগ নেতা ফিরোজ আহমেদের সেকেন্ড ইন কমান্ড আখ্যায়িত করেছেন, কিন্তু বিপলুর সাথে ফিরোজের কোন সম্পৃক্ততা নেই বলে দাবি করেন বিপলু।

বিপলু বলেন, স্থানীয় একটি স্বার্থান্বেষী মহল ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিলের জন্য ক্ষমতার জোর ও মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে আমাদেরকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন হয়রানি করে আসছে, এতে আমরা আতঙ্কিত অবস্থায় বসবাস করছি, আমরা এর প্রতিকার চাই সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে।

তরুন এই নেতা আরো দাবি করেন বলেন যারা আমাকে নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে তারাই হলো এলাকার প্রকৃত এবং চিহ্নিত সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, দখলবাজ, সেটা আমি যেমন জানি তেমনি, প্রশাসন, স্থানীয় মহল সহ সবাই জানে।

চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ.জম নাসির ঘোষিত জননেত্রী শেখ হাসিনা পরিষদের পাঁচলাইশ থানা শাখার বিপ্লবী সাধরাণ সম্পাদক ও নগর ছাত্রলীগ নেতা নুরুল বশর বিপলুকে যে যুবলীগ নেতা ফিরোজ আহমেদ এর সেকেন্ড ইন কমান্ড আখ্যায়িত করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ বানোয়াট ও ভিত্তিহীন, বিপলু পশ্চিম ষোলশহর এলাকার একটি স্বনামধন্য পরিবারের ছেলে, তিনি  সামাজিক উন্নয়নমুখী কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত আছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়।

নুরুল বশর বিপলুর পারিবারিক ঐতিহ্যঃ
বিপলু প্রকৃতপক্ষে একজন আওয়ামী পরিবারের সন্তান, বিপলুর পিতা মৃত এম কালা মিয়া কন্ট্রাক্টর তৎকালীন সময়ে স্থানীয় হামজা খাঁ জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি ছিলেন, ছিলেন বড় বাড়ির সর্দারও, খ্যাতি আছে ১৯৮৮ সাল থেকে ১৯৯৫ সাল পর্যন্ত একটানা ৭ বছর ছিলেন পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি, ১৯৯৬ তে এসে তিনি পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের উপদেষ্টায় নিযুক্ত হোন। বিপলুর বড় ভাই মির্জা আহমেদ ১৯৯০ সালে ছিলেন নগরীর ৭নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক, তিনি তৎকালীন সময়ে বিএনপির সীমাহীন নির্যাতন জুলমে একাধিকবার কারাভোগসহ অনেক নির্যাতনের শিকার হন বলেও রেকর্ড আছে।

কিন্তু একজন প্রকৃত আওয়ামী পরিবারের সন্তান কিভাবে এত লাঞ্চনা বঞ্চনা ও হয়রানির শিকার হয় তা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে প্রশ্ন রেখেছে স্থানীয় সুশিল সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গরা, তারা বলেন আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ও ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকারী ও বহিরাগতদের চিহ্নিত করতে হবে, তারা সর্বাধিক চাই বর্তমান সরকারের অধপতন।

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়ে নুরুল বশর বিপলু বলেন গমমাধ্যম বা সংবাদমাধ্যমের প্রতি আমাদের সর্বোচ্চ সম্মান আছে, বিশ্বাস করি বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনাকে, কিন্তু চট্টগ্রাম প্রতিদিন নামিয় অনলাইনে আমাদের নামে যে মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন সংবাদ ছাপিয়েছ তা আমাদের এবং আমাদের পরিবারের অনেক বড় মান হানি হয়েছে, আমরা এর তিব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

এই সংবাদটি শেয়ার করার দায়িত্ব আপনার

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ সমূহ