নৌকার মাঝি থেকে আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ, তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী নুরুল আবছার

চট্টগ্রাম অফিস ●
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

ছিলেন নৌকার মাঝি, এখন কোটিপতি। নাম নুরুল আবছার। অভিযোগ অল্প সময়ে বিপুল অর্থের মালিক বনে যাওয়া চট্টগ্রামের পতেঙ্গার নুরুল আবছার একজন তালিকাভুক্ত মাদকব্যবসায়ী। পরিবার সদস্যদের বিরুদ্ধেও আছে একই অভিযোগ। মাদক মামলা দিলে উল্টো পুলিশের ছয় সদস্যদের বিরুদ্ধে মামলা দেন আবছার।

চট্টগ্রামের পতেঙ্গা সৈকত এলাকা। পর্যটন এলাকা হওয়ায় সার্বক্ষণিক উপস্থিতি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর। সন্ধ্যার পর মাদক সেবন ও বেচাকেনার পাশপাশি পাল্লা দিয়ে বাড়ে মাদকসেবীদের উম্মাদনাও। অভিযোগ রয়েছে এই এলাকার মাদক ব্যবসার নিয়ন্ত্রণ নুরুল আবছারের সিন্ডিকেটের হাতে। যার পরিচয় (তার ভাষ্যমতে) শিপিং ব্যবসায়ী ।

এলাকাবাসী জানান, সে এখানে নৌকা চালাতো। এখন সে ইয়াবা ব্যবসা করে রাতারাতি কোটি টাকার মালিক হয়ে গেছে। তবে, সে এখনও কিভাবে সবার সম্মুখে মাদক ব্যবসা করে এটাই প্রশাসনের কাছে আমাদের প্রশ্ন।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের তালিকায় ৮, পুলিশের তালিকায় ১১ এবং একটি গোয়েন্দা সংস্থার তালিকায় ১০ নম্বরে আবছারের নাম।  একই ব্যবসার সঙ্গে জড়িত আবছারের ভগ্নিপতি ইলিয়াস টেষ্টার, ভাই রফিক, ফারুখ কানু, শাহীনূর, শ্যালক জসিম ও ড্রাইভার রফিক। সবশেষ ২০১৮ সালে বিদেশি মদসহ গ্রেপ্তার হন আবছার।

সিএমপি উপ-কমিশনার (বন্দর) হামিদুল আলম জানান, ‘তিন-চারটি মামলায় তার বিরুদ্ধে চার্জশীট হয়েছে এবং আরেকটি মামলার চার্জশীট প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। হয়তো সে কোনও প্রয়োজনীয় সুবিধা চেয়েছিল, যেটা পুলিশ দিতে পারেনি। এর প্রেক্ষিতে সে ক্ষুব্ধ হয়ে মামলা করেছে।’

পরে, তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়ার অভিযোগ এনে পুলিশের ছয় কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন আবছার।

ফোনে কথা বলা হলে তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী নুরুল আবছার জানান, ‘মাদক ব্যবসায়ীদের তালিকায় শুধু আট নম্বর না, এক নম্বর হলেও আমার কিছু যায় আসে না। এটা যেহেতু রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মামলা তাই প্রশাসনের ওপর আঘাত পড়েছে।’

মাদকবিরোধী অভিযান প্রশ্নবিদ্ধ করতেই আবছার উল্টো মামলার কৌশল নিয়েছে বলে দাবি পুলিশের। পাঁচলাইশ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কাশেম ভূঁইয়া বলেন, ‘এই ধরনের মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে মাদকের বিরুদ্ধে যে অভিযান চলছে, সে অভিযানকে স্তব্ধ করা যাবে না। আমরা অবশ্যই তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে সঠিক কাজটি করেছি।’

এদিকে, মাদক ব্যবসার অভিযোগ থাকায় আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করা হয় আবছারকে।

এই সংবাদটি শেয়ার করার দায়িত্ব আপনার

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ সমূহ

কক্সবাজার বাজারঘাটায় উর্মি বিউটি পার্লারে অভিযান ২০ হাজার টাকা জরিমানা

মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, কক্সবাজারঃ

কক্সবাজার কক্সবাজারে বাজারঘাটায় উর্মি বিউটি পার্লারে অভিযান ২০ হাজার টাকা জরিমানা কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে,৩০ সেপ্টেম্বর সোমবার কক্সবাজার শহরের বাজারঘাটা এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়। উক্ত অভিযানকালে উর্মি বিউটি পার্লার নামে এক প্রতিষ্টানে প্রচুর নকল ও লেভেলবিহীন পণ্য পাওয়ায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৫ অনুযায়ী ২০০০০ (বিশ হাজার টাকা) জরিমানা করা হয় এবং তাদেরকে ভবিষ্যতে এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়। জেলা প্রশাসনের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে

কক্সবাজার বাজারঘাটায় উর্মি বিউটি পার্লারে অভিযান ২০ হাজার টাকা জরিমানা

কক্সবাজার সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের দু’ গ্রুপে সংঘর্ষে আহত অন্তত ৫

স্টাফ রিপোর্টারঃ

কক্সবাজার সরকারী কলেজে সম্মেলন ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত পাচঁ আহত হয়েছে। আহতরা হলেন, শিমুল, খালেক, ইফতি ও শফিক। আজ রবিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলার এক শীর্ষ নেতা জানিয়েছেন, সম্মেলন ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক গ্রুপের মাঝে এইঘটনাটি ঘটে। আহতদের সরকারি হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। আহত শিমুল-ইফতি দুজনই কমার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ও সভাপতি গ্রুপের বলে জানা গেছে। দুজনের বাড়ি শহরের পিটি আই স্কুল এলাকায়। আহত অপর দুইজন খালেক ও শফিকের অবস্থা আশংকাজনক,দুজনই যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বলে জানা গেছে।

কক্সবাজার সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের দু’ গ্রুপে সংঘর্ষে আহত অন্তত ৫